গ্রামীণ রবি বাংলালিংক গ্রাহকরদের সুখবর

81 / 100

গ্রামীণ রবি বাংলালিংক গ্রাহকরদের সুখবর

ডাটা প্যাকের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও গ্রামীণ রবি বাংলালিংক গ্রাহকরদের সুখবর গ্রাহকরা অবশিষ্ট ডাটা ব্যবহার করতে পারবেন

বর্তমানে গ্রামীণ রবি বাংলালিংক গ্রাহকরা ডাটা প্যাকের মেয়াদ শেষ হওয়ার সাথে সাথে অবশিষ্ট ডাটা ব্যবহার করতে পারবেন?

সরকার নতুন ডাটা প্যাক কেনার সঙ্গে সঙ্গে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টে থাকা পুরনো প্যাক নতুন প্যাকের সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার ব্যাপারে একটি কাঠামো তৈরির প্রস্তুতি নিচ্ছে ।

সোমবার (২ আগস্ট) মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার এ বিষয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) নির্দেশ দেন। পাশাপাশি তিনি কোম্পানিগুলোকে ইন্টারনেট ডাটা প্যাকের মেয়াদ বাড়ানোর জন্যও বলেছেন।

বর্তমানে গ্রামীণ রবি বাংলালিংক গ্রাহকরা ডাটা প্যাকের মেয়াদ শেষ হওয়ার সাথে সাথে অবশিষ্ট ডাটা ব্যবহার করতে পারেন না?

 তবে কিছু অপারেটর আগে বার্তা পাঠিয়ে ডাটা প্যাকের মেয়াদ শেষ হওয়ার  বিষয়ে গ্রাহকদের সতর্ক করে থাকে।

এক বাংলালিংক গ্রাহক হাফিস বলেন, কর্তৃপক্ষ আমাকে এসএমএস পাঠায় “যখন আমার ডাটা অর্ধেক বা ডাটা প্যাকের মেয়াদ শেষদিকে চলে আসে, । তবে দীর্ঘসময় ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্য ভোক্তাদের অনেক ব্যয়বহুল বা টাকার ডাটা প্যাক কিনতে হয়।

তিনি বলেন, আগে গ্রামীণ রবি বাংলালিংক এই ডাটা মোবাইল অপারেটরগুলো ফেরত দিত। এই ডাটা আমি নিজেও ফেরত পেয়েছি। কিন্তু এখন তারা কেন দেয় না, এই প্রশ্নটা আমারও তাদের কাছে ।

তিনি আরও বলেন, যে আজেবাজে মেয়াদ দিয়ে যে মোবাইল ইন্টারনেট প্যাকেজ করা হয় সেটা যেন এখন থেকে আর না করে। তিনি বলেন, যে তারা যেন কল ড্রপের টাকা ফেরত দেয়। কারণ, যুক্তিসঙ্গগতভাবে এটা  ভোক্তার অধিকার। সেই অধিকার দিতে হবে তাদের । কাউকে একচেটিয়া ভাবে প্রফিট করার জন্য লাইসেন্স দেওয়া হয়নি।

এদিকে, সোমবার (২ আগস্ট) বিটিআরসি কার্যালয়ে আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান টিকেসি টেলিকম এবং বিটিআরসি’র মধ্যে টেলিকম মনিটরিং সিস্টেম ক্রয়ের চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারের সভাপতিত্বে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন বক্তব্য প্রদান করেন। এছাড়া মো. মহিউদ্দিন আহমেদ বিটিআরসি’র ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড অপারেশন্স বিভাগের কমিশনার প্রকৌশলী  অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন।

চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন বিটিআরসি’র পক্ষে ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড অপারেশন্স বিভাগের পরিচালক মো: গোলাম রাজ্জাক ও টিকেসি টেলিকমের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সামির তালহামি । চুক্তি অনুযায়ী ১৮০ দিনের মধ্যে সিস্টেম স্থাপনের কাজ শেষ করতে হবে।

এছাড়া, চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিটিআরসি’র ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মহাপরিচালক জেনারেল মো. এহসানুল কবীর এবং টেলিকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সামির তালহামি ।
টেলিকম মনিটরিং সিস্টেম ক্রয়ের জন্য ৭৭ কোটি ৬৫ লাখ টাকা ব্যয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি অনুমোদন দিয়েছে।

সিস্টেমটি বাস্তবায়িত হলে মোবাইল অপারেটরদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ এবং রিপোর্টিং প্রক্রিয়া স্বয়ংক্রিয় হবে।
এতে ভয়েস ও ডাটা ট্রাফিক, নেটওয়ার্ক ব্যবহার এবং মান সম্পর্কিত তথ্য নিশ্চিত হবে।সর্বোপরি বিটিআরসি’র প্রাপ্য রাজস্ব সম্পর্কে নিয়মিত ও নির্ভরযোগ্য তথ্যপ্রাপ্তি নিশ্চিত হবে। ফলে বিটিআরসি’র নীতিনির্ধারণী ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নতি সাধিত হবে।

শহর এলাকার পাশাপাশি গ্রামাঞ্চল, দ্বীপ, হাওড়-বাওড়, উপকূলীয় অঞ্চল ও দূর্গম এলাকার টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক এর প্রকৃত অবস্থা তাৎক্ষনিক ভাবে জানা যাবে। অপারেটরদের নেটওয়ার্কের লাইভ মনিটরিং এর মাধ্যমে নেটওয়ার্কের সেবার মান আরও সুদৃঢ়ভাবে যাচাই এবং গ্রাহক সেবার প্রকৃত অবস্থা জানা যাবে।নেটওয়ার্ক প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হলে তা পর্যবেক্ষণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে।

Join us

Facebook  Linkedin 

Leave a Comment

Your email address will not be published.